আজ ২৮শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১২ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

কালীগঞ্জে ধর্ষণ চেষ্টা ও অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকায় আটক-৪

কালিগঞ্জ (গাজীপুর) প্রতিনিধিঃ

গাজীপুরের কালীগঞ্জে প্রেমিক কর্তৃক প্রেমিকাকে ধর্ষণ চেষ্টা ও দুই প্রেমিক প্রেমিকা অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকার অভিযোগে পুলিশ ৪ জনকে আটক করেছে।

থানা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বাহাদুরসাদী ইউনিয়নের ঈশ্বরপুর গ্রামের কালিপদ চন্দ্র দাসের নাবালিকা কন্যা ছন্দা রানী (ছদ্মনাম)এর সাথে নরসিংদীর পলাশ উপজেলার গাবতলী গ্রামের জ্ঞান মোহন চন্দ্রদাসের পুত্র লিংকন দাস রিংকুর (২৫) প্রেমের সম্পর্ক চলছিল। মঙ্গলবার রাতে ছন্দার বোন জামাই তাপস দাসের সাথে রিংকু ছন্দাদের বাড়ীতে বেড়াতে আসে। পরে রিংকুকে ছন্দার ঘরে বসিয়ে রেখে তাপস বাড়ীর পাশের দোকানে চিপস্ কিনতে যায়। এসময় খালি বাড়ী পেয়ে রিংকু জোরপূর্বক ছন্দাকে ধর্ষণের চেষ্টা করলে ছন্দার চাচী এসে তাকে উদ্ধার করে রিংকুকে আটকে রাখে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে রিংকু ও তাপসকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। এ ঘটনায় ছন্দার পিতা বাদী হয়ে কালীগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন, যার নং ৮,তারিখঃ ২৩/০৮/২৩।

অপরদিকে উপজেলার মোক্তারপুর ইউনিয়নের বড়গাঁও গ্রামের চাঁন মিয়ার কন্যা চম্পা ইসলাম রুনার (২০) সাথে পার্শ্ববর্তী শিংলাব গ্রামের ইকবাল বেপারীর পুত্র নাদিম মাহমুদ (১৮) এর প্রেমের সম্পর্ক চলছিল। মঙ্গলবার রাতে চম্পা নাদিমকে ফোনে তাদের বাড়ীতে ডেকে আনে। পরে রাতের খাবার খেয়ে তারা দুজনে একই বিছানায় রাত্রীযাপন করে। সকালে মেয়ের মা বিষয়টি টের পেয়ে নাদিমকে আটক করলে সে ৯৯৯ এ ফোন দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে চম্পা ও নাদিমকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

কালীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ফায়েজুর রহমান জানান, ধর্ষণ চেষ্টায় অভিযুক্ত রিংকু এবং তার সহযোগী তাপসকে মঙ্গলবার বিকেলে গাজীপুর আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। এছাড়াও অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকায় প্রেমিক প্রেমিকাকে থানায় এনে আটকে রাখা হয়েছে। তবে কোন পক্ষ এখনো পর্যন্ত মামলা দায়ের করেনি।

Share

এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ