আজ ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

ঘুরতে গিয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় ৭বন্ধুর মৃত্যু! আহত-৪

নিজস্ব প্রতিবেদক:

নরসিংদীর শিবপুরে ট্রাক ও মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে সাত জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আরো চারজন গুরুতর আহত হয়েছে। সবাই সাভারের আশুলিয়ার এসবি নিটিং পোশাক কারখানার কর্মী। তারা একই প্রতিষ্ঠানে চাকরির সুবাদে একসঙ্গেই চলাফেরা করতেন। বৃহস্পতিবার (২৪ আগস্ট) কারখানা ছুটি শেষে তারা কয়েকজন সহকর্মী মিলে মাইক্রোবাস ভাড়া করে সিলেটে ঘুরতে যাচ্ছিলেন।

বৃহস্পতিবার (২৪ আগস্ট) দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের শিবপুর উপজেলার ঘাসিরদিয়া এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

সিলেট থেকে ছেড়ে আসা দ্রুতগতির পাথরবোঝাই ট্রাক আরেকটি গাড়িকে ওভারটেক করতে গিয়ে পোশাককর্মীদের বহনকারী মাইক্রোবাসটির সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনায় মাইক্রোবাসটি দুমড়েমুচড়ে সাত জন নিহত ও চার জন গুরুতর আহত হন। দুর্ঘটনার পর থেকে মাইক্রোবাস চালকের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না।

নিহতরা হলেন- গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার লতিফপুর গ্রামের আইয়ুব খানের ছেলে আল আমীন (২৭), কুষ্টিয়ার সদর উপজেলার খাজানগর গ্রামের নুরু মোল্লার ছেলে বাবুল মোল্লা (৪০), মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার উত্তর কৃষ্ণনগর গ্রামের তোফায়েল হাওলাদারের ছেলে আব্দুল আউয়াল (৩৭), জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলার ধারাবর্ষা গ্রামের দুদু মিয়ার ছেলে রাজু আহাম্মেদ (৩৬), বরিশালের মুলাদি উপজেলার মুলাদি গ্রামের মজিবর সিকদারের ছেলে রায়হান সিকদার ওরফে আরিয়ান (২৪), ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার পারগোপারপুর গ্রামের আবদুল গনি হাওলাদারের ছেলে আল আমীন হাওলাদার (২৯) ও টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার উপজেলার মীর কুমুল্লী গ্রামের মোতাহের হোসেনের ছেলে মীর নাজমুল হক ওরফে সবুজ (৩০)। আহত চারজনের মধ্যে ২জনের পরিচয় পাওয়া গেছে।

এসবি নিটিং কারখানার ব্যবস্থাপক (প্রশাসন) মীর শিহাব উদ্দীন জাকির জানান, মাইক্রোবাসটির চালক ও আরেকজন ছাড়া ৯ জনই তাদের প্রতিষ্ঠানের কর্মী। এর মধ্যে আট জনই প্রতিষ্ঠানের মার্চেন্ডাইজার ও একজন ফেব্রিকস সেকশনের স্টোরকিপার। কিছু দিন ধরেই তাঁরা সিলেটে ঘুরতে যাওয়ার পরিকল্পনা করছিলেন। সে অনুযায়ী বৃহস্পতিবার রাত ১১টার দিকে আশুলিয়া থেকে চালকসহ ১২ থেকে ১৩ জন ওই মাইক্রোবাসে চড়ে সিলেটের উদ্দেশে যাওয়ার পথে নরসিংদীর শিবপুরে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নরসিংদী ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক (ডিএডি) আবুল কালাম আজাদ জানান, ঘাসিরদিয়া এলাকায় অন্য একটি গাড়িকে দ্রুতগতিতে ওভারটেক করতে গিয়ে পাথরবোঝাই ট্রাকটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মাইক্রোবাসের সঙ্গে ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এঘটনায় মাইক্রোবাসের পাঁচ যাত্রী ঘটনাস্থলেই নিহত হন। ফায়ার সার্ভিসের সদস্য ও হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আহত ছয় জনকে উদ্ধার করে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে পাঠায়। হাসপাতালে নেওয়ার পর জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আরও দুই জনকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত চার জনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

নরসিংদী সদর হাসপাতালের চিকিৎসক মেহেদি হাসান জানান, হতাহত ছয় জনকে রাতেই হাসপাতালে আনা হয়েছিল। এর মধ্যে হাসপাতালে আনার পথে দুই জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত অপর চার জনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। আহতদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

ইটাখোলা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ভারপ্রাপ্ত ইনচার্জ কবির হোসেন ভূঁইয়া জানান, দুর্ঘটনায় দুমড়েমুচড়ে যাওয়া মাইক্রোবাস ও পাথরবোঝাই ট্রাক জব্দ করে ফাঁড়িতে আনা হয়েছে। ট্রাকের চালকও আটক আছেন। এ ঘটনায় আইনি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

Share

এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ